সংবিধান ও আইনের মর্যাদা রক্ষায় ইনু-কে অবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে

তথ্যমন্ত্রী ইনু গ্রেফতার হচ্ছেন কবে ?

ইনুকে গ্রেফতার

(১) “একমাত্র ধর্মীয় স্বীকৃত আলেমরাই ফতোয়া দিতে পারবেন এবং ধর্মীয় স্বীকৃত আলেম ছাড়া অন্য কেউ কোন ফতোয়া দিলে তা অবৈধ ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে বিবেচিত হবে” – উল্লেখ করে ২০১১ সালের ১২ মে প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হকের নেতৃত্বে গঠিত আপিল বিভাগ রায় দেয়।

(২) অথচ সর্বোচ্চ আদালতের এই রায়ের অবমাননা করে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আয়োজিত দিনব্যাপী বর্ষবরণ অনুষ্ঠান উদ্বোধনকালে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ফতোয়া জারী করে বলেছেন, ‘বৈশাখ বরন ঈমানের অঙ্গ।’

তার এই অবৈধ ফতোয়া জারী সকল প্রচার মাধ্যমে গুরুত্ব সহকারে প্রচার করা হলেও তথ্যমন্ত্রী অদ্যাবধি তা অস্বীকারও করেন নাই। যা তার বক্তব্যকে সমর্থনের জন্য যথেস্ট।

(৩) সর্বোচ্চ আদালত তার পর্যবেক্ষণে বলেছেন, “আলেম-ওলামারাই ফতোয়া দেবেন। ফতোয়ার নামে কারো সাংবিধানিক অধিকার হরণ করা যাবে না।”

২০০১ সনের জানুয়ারি মাসে বিচারপতি গোলাম রব্বানী ও বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ ফতোয়া নিষিদ্ধ করে দেয়া রায়ে বলেছিলেন, “কেউ ফতোয়া দিলে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৯ ধারা মোতাবেক শাস্তিযোগ্য অপরাধ হবে ।”

(৪) দেশের সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের পর দীর্ঘদিন ধরে অসংখ্য মানুষকে ফতোয়া দেবার অপরাধে জেলে যেতে হয়েছে।

গাইবান্ধা সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নে ফতোয়া দেয়ার অভিযোগে ৩ জনের শাস্তি হয়েছে।

এই অপরাধে খোদ আওয়ামী লীগের নেতারাও বাদ যায় নি। ফতোয়ার অভিযোগে বরিশাল নগরীর ১নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ও প্রভাবশালী আ’লীগ নেতা আউয়াল মোল্লাকে গ্রেফতার পর্যন্ত করে কাউনিয়া থানা পুলিশ।

আলেম, উলামা, পীর, মাশায়েখদের ওপর ফতোয়ার অভিযোগে পুলিশ দিয়ে হামলা ও নির্যাতনের অভিযোগ এনে বিক্ষুব্ধ মিছিল ও প্রতিবাদ পযর্ন্ত করতে হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ফতোয়া বোর্ডের ৫০১জন মুফতিকে।

(৫) অবৈধ ফতোয়া দেবার অপরাধে সবাইকে যদি জেলে যেতে হয়, তাহলে একই অপরাধে তথ্যমন্ত্রী ইনু কেন জেলে যাবে না ?

(৬) দেশের সর্বোচ্চ আদালতের রায় মানা সরকার ও পুলিশসহ প্রজাতন্ত্রের সকল কমর্কতা-কর্মচারীর উপর বাধ্যকর।

তাই অন্যান্যদের বেলায় যেরকম তাৎক্ষণিকভাবে গ্রেফতার করে জেলে প্রেরন করা হয়েছে, তথ্যমন্ত্রী ইনুকেও একইভাবে গ্রেফতার করা হোক।

‘আইনের দৃষ্টিতে সকলেই সমান’ – সংবিধানের এই বিধানটি ইনুর ক্ষেত্রেও সমভাবে প্রযোজ্য হওয়াটাই ন্যায়বিচারের পুর্বশর্ত।

(৭) তবে পুলিশ ও সরকার যদি ইনুকে গ্রেফতার করতে সাহস না দেখায়, হাইকোর্ট সুয়োমটো রুল জারি করেও তাকে গ্রেফতারের নির্দেশনা দিতে পারে।

সুপ্রিম কোর্টের আপিলের শুনানিকালে একটি বড় প্রশ্ন উঠেছিল পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্টের ভিত্তিতে হাইকোর্ট সুয়োমটো রুল জারি ও তার ওপর ভিত্তি করে রায় দিতে পারে কিনা ?

এ ব্যাপারে বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের রায়ে বলা হয়েছে, ‘একজন নাগরিকের মৌলিক অধিকার বাধাগ্রস্ত হলে হাইকোর্ট সে ক্ষেত্রে সুয়োমটো রুল ইস্যু করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন, পোস্ট কার্ড এবং লিখিত উপাদান আবেদনপত্র হিসেবে বিবেচ্য হতে পারে।’

(৮) তাই তথ্যমন্ত্রী ইনুর বিরুদ্ধে সুয়োমটো রুল ইস্যু করে তাকে দ্রুত গ্রেফতার করে শাস্তি দিয়ে সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের বাস্তবায়ন করতেও কোন বাধা নাই।

সুত্র:মূল লেখাটি দেখতে এখানে ক্লিক করুণ

২০১৬ সালের মতো এবারও এই মন্ত্রী ফতোয়া প্রসব করেছে পহেলা বৈশাখ পালনে মুসলমানিত্ব যায়না।

দেখুন এবারের দেওয়া ফতোয়া

About الفقه الحنفي الفقه الاكبر

বিদগ্ধ মুফতিয়ানে কেরামের দ্বারা পরিচালিত , সকল বাতিলের মুখোশ উন্মোচনে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ , উলামায়ে আহনাফ এবং হানাফি মাজহাবের অনুসারীদের সরবাধুনিক মুখপাত্র ফিকহে হানাফী দ্যা গ্রেট ডটকম। আমাদের কারয্যক্রমঃ- ক) ফিকহে হানাফী দ্যা গ্রেট ডটকম । খ) ফিকহে হানাফী দ্যা গ্রেট অনলাইন রিচার্স সেন্টার । গ) বাতিলের মোকাবেলায় সারা দুনিয়া ব্যাপি ইসলামিক সেমিনার ঘ) এবং মুনাজারায় অংশগ্রহণ । ঙ) হোয়াটএ্যাপ্স, টেলিগ্রাম, ভাইবার & সোমা চ্যাট ম্যাসেঞ্জারে ফিকহে হানাফীঃপ্রশ্ন-উত্তর গ্রুপ। আমাদের ভবিষ্যত পরিকল্পনাঃ- ক) ফিকহে হানাফী দ্যা গ্রেট অফলাইন রিচার্স সেন্টার । খ) ফিকহে হানাফী দ্যা গ্রেট ইউনিভার্সিটি । গ) হানাফী টিভি সহ আরও বহুমুখি প্রকল্প। আমাদের আবেদনঃ- এই বহুমুখি এবং বিশাল প্রকল্প-এর ব্যয়ভার কারও একার পক্ষে বহন করা খুবই দুঃসাধ্য ব্যপার। সুতারাং আপনি নিজে ও আপনার হিতাকাংখি দ্বীনের খেদমতে আগ্রহী বন্ধুদের নিয়ে মাসিক/বাতসরিক ও এককালীন সদস্য হিসেবে সহযোগিতার হাত প্রশস্ত করে এগিয়ে আসবেন ; এটাই আমাদের প্রত্যাশা। সাহায্য পাঠাবার ঠিকানাঃ- ১) সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, বয়রা শাখা, খুলনা Account Name: Md. Hedaytullah Account No: 2704501011569 ২) বিকাশঃ- +৮৮০১৯২৩৮৭১২৯৩ ৩) এমক্যাশঃ- +৮৮০১৯২৩৮৭১২৯৩৬ ৪) ডি,বি,বি,এল/রকেটঃ- +৮৮০১৯২৩৮৭১২৯৩৮ Express Money Transfer:- Name Hedaytullah ID NO 6512895339162 সার্বিক যোগাযোগঃ- মুফতি মুফাসসির হিদায়াতুল্লাহ শেখ মোবাঃ- +৮৮০১৯২৩৮৭১২৯৩ fiqhehanafithegreat@gmail.com